চাঁপাইনবাবগঞ্জ সীমান্তে বাংলাদেশি যুবকের লাশ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে উমর ফারুক (২২) নামে বাংলাদেশি এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সদর উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চল বকচর থেকে সোমবার বিকালে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত উমর ফারুক রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার চর আষাঢ়িয়াদহ ইউনিয়নের হৈমন্তনগরের মাহবুবুর রহমানের ছেলে।

নিহত ফারুকের চাচা জানান, চার বছর আগে অভিমান করে ভারতে চলে যায় ফারুক। দীর্ঘদিন পর বাসায় ফেরার পথে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের সদস্যরা তাকে পিটিয়ে হত্যা করে। এরপর লাশটি নদীতে ফেলে দেয়। পরে লাশ ভেসে আসলে পুলিশের সহায়তায় লাশ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, ফারুক নির্মাণ শ্রমিক হিসেবে ভারতের চেন্নাইয়ে যায়। নিহতের পরিবার রোববার তাদের ভারতে থাকা আত্মীয়-স্বজনদের মাধ্যমে জানতে পারে ফারুকের লাশ ভারতের বালুচরে পড়ে আছে। পরে স্থানীয় বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যদের সঙ্গে তারা যোগাযোগ করে। সোমবার বকচর এলাকার আন্তর্জাতিক সীমান্ত পিলার ৩৪/৪-৫ পিলারের ৩শ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে শাজাহানপুর ইউনিয়নের বকচর পদ্মা নদীতে লাশটি ভাসতে দেখা যায়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মোজাফফর হোসেন বলেন, সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর হত্যার প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলে জানান তিনি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৫৩ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল সুরুজ মিয়া জানান, বাগচর সীমান্তের শূন্যরেখা থেকে ৩শ গজ বাংলাদেশের ভেতরে ফারুকের লাশ পড়ে ছিল। সকালে টহলরত বিজিবি সদস্যদের নজরে আসলে তারা কাছে গিয়ে লাশটি দেখে পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

তিনি জানান, লাশের শরীরে গুলির কোনো চিহ্ন ছিল না। এরপরও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফকে লাশ উদ্ধারের ব্যাপারে জানানো হয়েছে। বিএসএফের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সীমান্তে কোনো গুলি বা অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটেনি।

শেয়ার করুন