নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপান্তরিত হয়েছে, নাম ‘পেথাই’                       ঐক্যফ্রন্টের বিজয় শোভাযাত্রা, হামলা বন্ধের আহ্বান                       ড. কামাল হোসেনের ওপর হামলা ফৌজদারি অপরাধ : সিইসি                       বিএনপি নেতা মাহাবুব উদ্দিন খোকন গুলিবিদ্ধ                       ৫২টি স্বর্ণের বার জব্দ ওসমানী বিমানবন্দরে       

সাকিবকে ঘিরে পাল্টে গেল মেলার রং

মেলা যেন হয়ে গেল এক টুকরো ক্রিকেট স্টেডিয়াম। তার মাঝখানে বসে আছেন বিশ্বের এক নম্বর অলরাউন্ডার ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। আর চারপাশ ঘিরে ভক্তরা। প্রিয় ক্রিকেটারের নজর কাড়তে সোল্লাস চিত্কার, ‘সাকিব ভাই, সাকিব ভাই, সাকিব ভাই!’গতকাল সোমবার মেলার পঞ্চম দিনে প্রকাশিত হয়েছে শিশুদের জন্য তাঁর জীবনীগ্রন্থ হালুম। বাংলালিংকের সৌজন্যে বইটি প্রকাশ করেছে পার্ল পাবলিকেশনস। এ বইয়ের প্রচারণার অংশ হিসেবেই মেলায় এসেছিলেন সাকিব। বইয়ের পাতায় ভক্তদের এঁকে দিয়েছেন ভালোবাসার স্বাক্ষর।সাকিবের আসার আগাম ঘোষণা ছিল না। প্রতিদিনকার মতো মেলায় প্রবেশের জন্য লাইন ধরেছিলেন অনেক পাঠক। শুরুতে তাঁদের চোখ এড়িয়ে গেল কালো রঙের গাড়িটি। প্রবেশের গেট দিয়ে ঢোকা সম্ভব না। তাই মেলা থেকে বের হওয়ার গেট দিয়েই ঢুকল সেই গাড়ি। সোজা পার্ল পাবলিকেশনস প্যাভিলিয়নে। তারপর যেন বিস্ফোরণের মতোই ছড়িয়ে পড়ল সেই খবর—মেলার মাঠে সাকিব। মুহূর্তেই ভক্তদের বিপুল ভিড় তাঁকে ঘিরে।উপচে পড়া ভিড়ের মধ্যেই ভক্তদের কেনা বইয়ে অটোগ্রাফ দিতে শুরু করেন সাকিব। আর সঙ্গে ভক্তদের ছবি তোলার আবদার মিটিয়েছেন সহাস্যে। সব মিলিয়ে ১ ঘণ্টা ২০ মিনিট পার্লের প্যাভিলিয়নে ছিলেন সাকিব আল হাসান। আর এই পুরোটা সময়ই মেলায় ছড়িয়ে ছিল সাকিব উন্মাদনা। যার রেশ ছিল তাঁর চলে যাওয়ার পরও। মেলার ফটক বন্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত অনেকের মুখে মুখে ছিল সাকিবের আসার কথা।হাজারো ভক্তের ভিড় ঠেলে পার্ল পাবলিকেশনসের ভেতরে যাওয়া সম্ভব হলো।সাকিব জানালেন, এবারই প্রথম মেলায় এসেছেন। বললেন, ‘কত ভেবেছি মেলায় আসব; কিন্তু কখনোই আসা হয় না। এবার একটি উপলক্ষ পাওয়ায় চলে এসেছি।’ একটার পর একটা বইয়ে অটোগ্রাফ দিতে দিতে তিনি বললেন, ‘সব সময় ব্যাটে, বলে আর কাগজে অটোগ্রাফ দিয়েছি, এবারই প্রথম বইয়ের পাতায় অটোগ্রাফ দিচ্ছি!’ পার্ল পাবলিকেশনসের স্বত্বাধিকারী হাসান জায়েদী জানান, বাচ্চাদের উপযোগী করে চার রঙে ছাপা হয়েছে সাকিবের হালুম। গতকাল পঞ্চম দিনে গ্রন্থমেলার পরিবেশ ছিল ছিমছাম। বিকেল থেকে রাত অবধি পাঠকেরা ঘুরেফিরে দেখেছেন নতুন বই। পছন্দ হলে কিনেছেনও।গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘আ জ ম তকীউল্লাহ: জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আলী ইমাম। ভাষাসংগ্রামী আহমদ রফিকের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন রতন সিদ্দিকী ও শান্তা মারিয়া। গান শোনান শিল্পী শামা রহমান, স্বর্ণময়ী মণ্ডল, আবদুর রশীদ ও স্বপ্নীল সজীব।আজ মঙ্গলবার মেলার ষষ্ঠ দিনে মেলা চলবে বেলা তিনটা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত। বিকেলে মেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে ‘অশ্বিনীকুমার দত্ত: জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান।


  • ক্রাইমনিউজবিডি.কম

    © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
    সম্পাদক ও প্রকাশক:
    মোঃ গোলাম মোস্তফা
    সুইট -১৭, ৫ম তলা, সাহেরা ট্রপিক্যাল সেন্টার,
    ২১৮ ডঃ কুদরত-ই-খোদা রোড,
    নিউ মার্কেট ঢাকা-১২০৯।
    মোবাইল - ০১৫৫৮৫৫৮৫৮৮,
    ই-মেইল : mail-crimenewsbd2013@gmail.com

    এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি
    অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও
    প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

  • গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক

  • সামাজিক মাধ্যম