ভারত-পাকিস্তান মহারণ আজ                       গাজীপুরে মাদ্রাসা পরিচালকের স্ত্রী ও ছাত্র খুন                       রাজধানীতে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২                       নাটোরে র‌্যাবের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' মাদক ব্যবসায়ী নিহত                       ম্যাচ সেরা মুশফিক       

পাট ব্যবসায়ী ও ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

আজ মঙ্গলবার খুলনা নগরের দৌলতপুর থানায় মামলাটি করেন দুদক খুলনার সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক মো. মোশারফ হোসেন।পাট ব্যবসায়ীর নাম সঞ্জিত কুমার দাস। তিনি দৌলতপুরের ইস্টার্ন জুট ট্রেডার্সের মালিক। ব্যাংক কর্মকর্তা হলেন সোনালী ব্যাংক খুলনা জিএম অফিসের সহকারী মহাব্যবস্থাপক মো. নজরুল ইসলাম। সঞ্জিত কুমার দাস যখন দৌলতপুর করপোরেট শাখা থেকে ঋণ নেন, তখন ওই শাখায় কর্মরত ছিলেন নজরুল ইসলাম। মামলার অন্য আসামি হলেন সোনালী ব্যাংকের গুদামরক্ষক মো. মতিয়ার রহমান। বর্তমানে তিনি ঝিনাইদহের মহেশপুর শাখায় কর্মরত।মামলার বাদী ও দুদকের খুলনা কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক মোশারফ হোসেনের ভাষ্য, ইস্টার্ন জুট ট্রেডার্সের মালিক সঞ্জিত কুমার তাঁর প্রতিষ্ঠানের নামে ২০০৮ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৪৯ কোটি ৬২ লাখ ১৪ হাজার টাকা ঋণ নেন—যা সুদ-আসলে বর্তমানে ৯২ কোটি ৬৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা। ঋণ নেওয়া টাকা তিনি কখনো পরিশোধ করেননি।মোশারফ হোসেন বলেন, সঞ্জিতের তথ্য অনুযায়ী ওই টাকা দিয়ে তিনি পাট কিনে গুদামে মজুত করেছেন। কিন্তু তাঁর গুদামেও যে পরিমাণ পাট দেখানো হয়েছে, এতে ১ লাখ ২৪ হাজার ১৫০ মণ পাট নেই। প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে, সোনালী ব্যাংকের গুদামরক্ষক মতিয়ার রহমান ও এজিএম নজরুল ইসলাম প্রতিষ্ঠানের মালিক সঞ্জিত কুমারের সঙ্গে যোগসাজশে ওই টাকা আত্মসাৎ করেছেন। এ কারণে তাঁদের বিরুদ্ধে দুদক আইনে মামলা করা হয়েছে।


  • ক্রাইমনিউজবিডি.কম

    © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
    সম্পাদক ও প্রকাশক:
    মোঃ গোলাম মোস্তফা
    সুইট -১৭, ৫ম তলা, সাহেরা ট্রপিক্যাল সেন্টার,
    ২১৮ ডঃ কুদরত-ই-খোদা রোড,
    নিউ মার্কেট ঢাকা-১২০৯।
    মোবাইল - ০১৫৫৮৫৫৮৫৮৮,
    ই-মেইল : mail-crimenewsbd2013@gmail.com

    এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি
    অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও
    প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

  • গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক

  • সামাজিক মাধ্যম