সুইসাইড নোট লেখা আর্জেন্টাইন সমর্থকের লাশ উদ্ধার                       হত্যা মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে রায় ২ জুলাই                       পাবনায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১                       পাবনায় বন্দুকযুদ্ধে পুলিশ হত্যা মামলার আসামি নিহত                       একদিনে সড়কে নিহত ৫২       

ব্যাংকিং খাতের বড় ঝুঁকি ইচ্ছাকৃত খেলাপিরা

এর বাইরে ঋণখেলাপি এবং তহবিল বৈচিত্র্যকরণও ব্যাংকগুলোর গুরুত্বপূর্ণ ঝুঁকি। ১৯ শতাংশ ব্যাংকে তহবিল বৈচিত্র্যকরণ হচ্ছে এবং ১৮ শতাংশ ব্যাংকে গ্রাহকরা ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপি হচ্ছে, যা ব্যাংকিং খাতের জন্য বড় ধরনের ঝুঁকি।বৃহম্পতিবার রাজধানীর মিরপুরে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) অডিটোরিয়ামে ‘এক্সপ্লোরিং বেরিয়ারস অব সাসটেইনেবল ফিন্যান্স ইন ফিন্যান্সিয়াল সেক্টর অ্যান্ড পলিসি প্রোপজিশনস টু রিমুভ দ্য বেরিয়ার’ শীর্ষক কর্মশালায় এক গবেষণা প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।প্রধান অতিথি হিসেবে কর্মশালার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চৌধুরী। বিআইবিএমের অধ্যাপক এবং পরিচালক (ট্রেনিং) ড. শাহ মো. আহসান হাবীবের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল কর্মশালায় গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন।বিআইবিএমের মহাপরিচালক ড. তৌফিক আহমদ চৌধূরীর সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক মনোজ কুমার বিশ্বাস।গবেষণা প্রতিবেদনে আরও দেখা গেছে, দেশের ব্যাংকগুলোর বেশিরভাগই প্রত্যন্ত অঞ্চলের গ্রাহকদের কাছে পৌঁছাতে পারে না। ৪৯ শতাংশ ব্যাংকই গ্রামের গ্রাহকদের কাছে পৌঁছাতে পারে না, যা ব্যাংকগুলোর জন্য বড় বাধা।এছাড়া সক্ষমতা উন্নয়নেও পিছিয়ে রয়েছে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো। দেশের ৫৯ শতাংশ ব্যাংকেই দক্ষ জনশক্তির অভাব রয়েছে। কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চৌধুরী বলেন, ১৯৯৭ সালে গ্রিন ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ব্যাংকিং খাতে টেকসই অর্থায়ন শুরু হয়। এরপর বাংলাদেশ ব্যাংক অনেক পদক্ষেপ নিয়েছে।এ কারণে ব্যাংকিং খাতে টেকসই অর্থায়ন কার্যক্রম চললেও কিছু বাধা আছে তা দূর করতে কাজ করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ বলেন, টেকসই উন্নয়নের ক্ষেত্রে একটা তহবিল গঠন করতে হবে।তবে এটা ব্যাংকের ঘাড়ে চাপালে ব্যাংক করবে না। তাই বাংলাদেশ ব্যাংক একটা কোর ফান্ড গঠন করতে পারে। যেখানে সরকারের বাজেট থেকে কোর ফান্ডে টাকা জমা হবে। এই ফান্ডে বাংলাদেশ ব্যাংক এবং বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোও টাকা জমা করবে। তিনি বলেন, শস্য বীমা উদ্যোগ নিয়েছে সরকার তা বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। কারণ এতে কৃষকের ব্যয় বেড়ে যাবে।বিআইবিএমের সুপারনিউমারারি অধ্যাপক এবং পূবালী ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক হেলাল আহমেদ চৌধুরী বলেন, ব্যাংকিং খাতে টেকসই অর্থায়নের ক্ষেত্রে দক্ষতা উন্নয়ন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।এক্ষেত্রে ট্রেনিংয়ের বাজেট রাখতে হবে। কিন্তু কোনো বোর্ড ট্রেনিংয়ের বাজেট রাখতে চায় না। তিনি বলেন, ইদানীং সব ক্ষেত্রেই ব্যাংকগুলোর মধ্যে একটা অস্বাস্থ্যকর প্রতিযোগিতা বিরাজ করছে। কিন্তু টেকসই অর্থায়নের ক্ষেত্রে সবাইকে একই ছাতার নিচে আসতে হবে।বিআইবিএমের সুপারনিউমারারি অধ্যাপক এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক নির্বাহী পরিচালক ইয়াছিন আলি বলেন, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের মাঝে আর্থিক শিক্ষা ছড়িয়ে দিতে হবে।
তাই শুরু থেকেই ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে গ্রিন ব্যাংকিং, স্কুল ব্যাংকিংসহ অন্যান্য বিষয়ে ধারণা দিতে হবে। এজন্য ষষ্ঠ শ্রেণী থেকেই প্রাতিষ্ঠানিকভাবে আর্থিক শিক্ষার কাঠামো গড়ে তোলা উচিত ।বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, গত কয়েক বছর ধরে শস্য বীমা চালু করার কথা বলা হলেও তা আলোর মুখ দেখছে না। একই সঙ্গে সবুজ অর্থায়নের কোনো প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে না। প্রশিক্ষণ এবং গবেষণার মাধ্যমে মানব সম্পদের উন্নয়ন করতে হবে।


  • ক্রাইমনিউজবিডি.কম

    © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
    সম্পাদক ও প্রকাশক:
    মোঃ গোলাম মোস্তফা
    সুইট -১৭, ৫ম তলা, সাহেরা ট্রপিক্যাল সেন্টার,
    ২১৮ ডঃ কুদরত-ই-খোদা রোড,
    নিউ মার্কেট ঢাকা-১২০৯।
    মোবাইল - ০১৫৫৮৫৫৮৫৮৮,
    ই-মেইল : mail-crimenewsbd2013@gmail.com

    এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি
    অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও
    প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

  • গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক

  • সামাজিক মাধ্যম