নরসিংদীতে বাস-বর যাত্রীবাহী গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৩                       স্ত্রীর ধাক্কায় নদীতে নিখোঁজ স্বামীর লাশ উদ্ধার                       মেধার ভিত্তিতে নিয়োগের সুপারিশ করবে কমিটি’                       যুদ্ধাপরাধের মামলায় পটুয়াখালীর ইসহাকসহ ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড                       পবিত্র ঈদুল আজহা ২২ আগস্ট       

ছাত্রলীগের সম্মেলন:বঞ্চিত মফস্বল নেতাকর্মীরা

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ২৯তম সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ হয়েছে আগামী ১১ ও ১২ মে। দিনক্ষণ ঠিক হওয়ার পর থেকেই ঢাকার নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে। পদ প্রত্যাশীরা বিভিন্ন নেতাদের কাছে ধর্না দিচ্ছেন। এমনকি আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতারাও চেষ্টা চালাচ্ছেন পছন্দমত ব্যক্তিকে পদে বসাতে।

তবে অভিযোগ রয়েছে, সম্মেলনের আমেজ শুধু ঢাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নেতাকর্মীদের মাঝে প্রভাব ফেলে। বিশেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঢাকা কলেজ। দেশের অন্যতম বৃহত্তম বিদ্যাপিঠ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়সহ মফস্বলের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নেতাকর্মীদের মধ্যে এই প্রভাব দেখা যায় না। এর মূল কারণ হলো বিগত কেন্দ্রীয় কমিটিতে তাদের গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া হয়নি।

ভুক্তভোগী নেতারা বলছেন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে শুধু ঢাকার নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন হয়। ঢাকার বাইরে হওয়ার কারণে কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়মিত ধর্না দেওয়া সম্ভব হয় না। তাই আমরা চোখে পড়ি না। তবে মফস্বলের ত্যাগী নেতাদের সন্তুষ্ট করতে নামে মাত্র পদ দিয়েই সন্তুষ্ট রাখা হয়। তাও আবার কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করার সময় না। ঢাকার বাইরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সম্মেলনে প্রত্যাশা অনুযায়ী পদ দিতে না পাড়লে পরবর্তীতে তুষ্ট করার জন্য কেন্দ্রীয় সদস্য পদ দেওয়া হয়। 

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সম্মেলনে আওয়ামী লীগের উচ্চপর্যায় থেকে তিন নেতাকে নেতৃত্ব বাছাইয়ের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে শীর্ষ পদের মধ্যে একটি আসতে পারে। এছাড়াও উত্তর বঙ্গ ও দক্ষিণ বঙ্গকে বিশেষ বিবেচনায় রাখা হয়েছে। কেন না দীর্ঘদিন যাবৎ রাজশাহী ও বরিশাল কেন্দ্রীয় কমিটির শীর্ষ পদে নেতৃত্বে আসেনি।

বড় বড় এই তিন ক্যাম্পাস থেকে প্রতিপক্ষের নির্যাতন, পঙ্গুত্ববরণসহ বিভিন্ন নির্যাতন মোকাবেলা করে বিগত দুই যুগে মাত্র ৫ জন কেন্দ্রীয় কমিটির কথিত গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। যাদের মধ্যে সর্বোচ্চ সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন মাত্র দুই জন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
রাবি ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাইফুজ্জামান শিখর ১৯৯৪ সালে কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হিসেবে স্থান পায়। দীর্ঘ বিশ বছর পরে কেন্দ্রীয় কমিটিতে সহ-সভাপতি পদে জায়গা পায় তৎকালীন রাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু হোসাইন বিপু। 

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘বাংলাদেশের যতগুলো ক্যাম্পাস রয়েছে তারমধ্যে ছাত্রলীগ করতে গিয়ে বেশি ত্যাগ স্বীকার করতে হয় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পসের নেতাকর্মীদের। যোগ্য নেতৃত্ব থাকা সত্বেও মফস্বল হওয়ার কারণে কেন্দ্রীয় কমিটিতে জায়গা হয় না আমাদের। ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ণ করা আহবান জানান তারা।’

পরে রাজশাহী অঞ্চল থেকে গত সম্মেলনে সহ-সভাপতি পদে জায়গা মিলে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি খায়রুজ্জামান লিটনের মেয়ে অনিকা ফারিহা জামান অর্ণার।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
২০০১ সালে মহসিন করিম রিয়াল সহ-সভাপতির পদ পান। তারপর থেকে এ পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পদে দেখা মিলনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কোনো নেতাকে।

এ ব্যাপারে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আলমগীর টিপু বলেন, ‘কেন্দ্রীয় সম্মেলন শুধু ঢাকার কিছু প্রতিষ্ঠান নিয়ে কমিটি গঠন করা উচিৎ নয়।


ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সর্বপ্রথম ২০০৯ সালে তখনকার সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন কেন্দ্রীয় কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক পদ পান। জাহাঙ্গির হোসেন ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি।

তবে ২০১১-২০১৫ পর্যন্ত বদিউজ্জামান সোহাগ ও নাজমুল আলমের কমিটিতে সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন তিনি। 

এ দিকে শামীম হোসেন বর্তমান কমিটির উপ-ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। তবে গুরুত্বপূর্ণ দুই পদে কখনও দেখা মেলেনি ইসলামী  বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতাকর্মীদের। 

এ ব্যাপারে ইসলামী  বিশ্ববিদ্যালয় সভাপতি শাহিনুর রহমান শাহিন বলেন, ‘ঢাকার নেতারা তাদের কাছে থাকার কারণে কেন্দ্রীয় নেতাদের উপর প্রভাব বিস্তার করতে পারে। এবং বড় বড় নেতাদের সাথে যোগাযোগের কারণে অযোগ্য হওয়া সত্বেও তারা কেন্দ্রে জায়গা পায়। আমরা যতই দলের জন্য ত্যাগ করি না কেন আমারা তাদের নজরে নেই।’

সম্মেলনের সার্বিক বিষয়ে বর্তমান কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগে সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের মোবাইল ফোনে একাধিক বার যোগাযোগ করা হলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।


  • ক্রাইমনিউজবিডি.কম

    © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
    সম্পাদক ও প্রকাশক:
    মোঃ গোলাম মোস্তফা
    সুইট -১৭, ৫ম তলা, সাহেরা ট্রপিক্যাল সেন্টার,
    ২১৮ ডঃ কুদরত-ই-খোদা রোড,
    নিউ মার্কেট ঢাকা-১২০৯।
    মোবাইল - ০১৫৫৮৫৫৮৫৮৮,
    ই-মেইল : mail-crimenewsbd2013@gmail.com

    এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি
    অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও
    প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

  • গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক

  • সামাজিক মাধ্যম