১২৯ রানে গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ                       ধানের শীষে ভোট দেওয়া মানেই লাখ শহীদের হত্যাকারীদের পক্ষ নেওয়া : জয়                       কামাল হোসেনের উপর হামলার ঘটনায় পুলিশকে ইসির চিঠি                       নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপান্তরিত হয়েছে, নাম ‘পেথাই’                       ঐক্যফ্রন্টের বিজয় শোভাযাত্রা, হামলা বন্ধের আহ্বান       

নরসিংদীতে পুলিশি হেফাজত থেকে জঙ্গির পলায়ন

১০ আসামিকে আদালতের হাজতখানা থেকে এজলাসে নিয়ে যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। কাউসার সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার বিনানাই এলাকার আবুল কালাম ওরফে কলিমের ছেলে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় অস্ত্র ও ডাকাতির ৫টি মামলা রয়েছে। কাউসার আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য ও নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠনের সদস্য। আদালত পুলিশ জানায়, সকালে মো. কাউসারসহ ১০ জনকে আদালতের হাজতখানায় আনা হয় হাজিরা শুনানির জন্য।আদালত পুলিশের সদস্য সাইদুল ও আবদুল হামিদ আসামিদের হাতকড়া পরিয়ে হাজতখানা থেকে আদালতের দোতলায় মুখ্য বিচারিক হাকিমের এজলাসে নিয়ে যাওয়ার সময় কৌশলে কাউসার পালিয়ে যায়। আদালতে হাজিরা দেয়ার জন্য এজলাসে উঠানোর সময় পুলিশ সদস্য বুঝতে পারেন এক আসামি নেই। পরে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে আদালত পুলিশের 
পরিদর্শক (ওসি) মো. রুহুল ইসলাম বলেন, ‘এটা আমাদের ব্যর্থতা। আমরা চেষ্টা করছি তাকে গ্রেপ্তার করতে। আমরা দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্যদের দায়িত্বে অবহেলা ও সার্বিক বিষয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দিচ্ছি। তারা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।’তিনি বলেন, ‘আদালতের নিরাপত্তার জন্য আমরা সিসি ক্যামেরা লাগিয়েছিলাম। পরে বিচারকদের আপত্তির কারণে তা খুলে ফেলতে বাধ্য হয়েছি। আজকে যদি সিসি ক্যামেরা থাকত তাহলে সহজেই ঘটনাটি বের করে ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হতো।’


  • ক্রাইমনিউজবিডি.কম

    © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
    সম্পাদক ও প্রকাশক:
    মোঃ গোলাম মোস্তফা
    সুইট -১৭, ৫ম তলা, সাহেরা ট্রপিক্যাল সেন্টার,
    ২১৮ ডঃ কুদরত-ই-খোদা রোড,
    নিউ মার্কেট ঢাকা-১২০৯।
    মোবাইল - ০১৫৫৮৫৫৮৫৮৮,
    ই-মেইল : mail-crimenewsbd2013@gmail.com

    এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি
    অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও
    প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

  • গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক

  • সামাজিক মাধ্যম